লেখাপড়ার পাশাপাশি চিত্রাঙ্কনে ছাত্রদের মন ও মেধার বিকাশ ঘটে : সাংসদ হাফিজ মজুমদার

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২০

লেখাপড়ার পাশাপাশি চিত্রাঙ্কনে ছাত্রদের মন ও মেধার বিকাশ ঘটে : সাংসদ হাফিজ মজুমদার

স্কলার্সহোমস দক্ষিণ সুরমা ক্যাম্পাসে আর্ট গ্যালারি’র উদ্বোধন


সোনালী সিলেট ডেস্ক
রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান ও হাফিজ মজুমদার শিক্ষা ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ড. হাফিজ আহমদ মজুমদার এমপি বলেছেন, লেখাপড়ার পাশাপাশি নিয়মিত খেলাধুলা, শরীরচর্চা ও চিত্রাঙ্কন করে ছাত্রদের মন ও মেধার বিকাশ ঘটে। চিত্র আঁকার মধ্যে একজন কোমলমতি ছাত্র তাঁর মনের গহীনে জমানো প্রতিভা চিত্রে ফুটিয়ে তোলতে পারে। এ বিকাশ ফুলের সুবাসের মতো চারিদিকে তথা জাতীয় পর্যায়ে প্রভাব ফেলে।

 

তিনি সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে স্কলার্সহোম দক্ষিণ সুরমা ক্যাম্পাসে আর্ট গ্যালারির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

 

অভিভাবকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, স্কলার্সহোমসে যারা লেখাপড়া করাবেন তাঁরা যেন গতানুগতিক ভাবে তাদের সন্তানকে প্রাইভেট পড়ানো বন্ধ করেন। প্রাইভেট পড়ানো বন্ধ করলে ছাত্রদের মেধা আরো বিকশিত হবে। সরকার চাচ্ছে সকল শিক্ষার্থীদের প্রাইভেট পড়ানো বন্ধ করতে। আমাদের (স্কলার্সহোমস) প্রথম থেকেই ক্লাসের পড়া ক্লাসে শেষ এবং ক্লাসের পড়ানো পুনরায় হোমওয়ার্কে হিসেবে দেয়া হয়। তাই আপনারা আপনাদের সন্তানকে আরো মেধাবী করে গড়ে তুলতে প্রাইভেট পড়ানো বন্ধ করে জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতের সাথে চলতে শেখান। তাহলে আপনার সন্তান সুসন্তান হিসেবে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হবে।

 

এসময় বক্তব্য রাখেন, স্কলার্সহোমসের একাডেমিক চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কবির এইচ চৌধুরী, স্কলার্সহোমস সিনিয়র ক্যাম্পাসের প্রিন্সিপাল ব্রিগেডিয়ার (অবঃ) জোবায়ের সিদ্দিকী, শিবগঞ্জ ক্যাম্পাসের প্রিন্সিপাল প্রফেসর প্রাণবন্ধু বিশ্বাস, পাঠানটুলা ক্যাম্পাসের ভাইস প্রিন্সিপাল আব্দুল আজিজ, হেড অব স্কুল সেকশন জেবুন্নেছা জীবন, দক্ষিণ সুরমা ক্যাম্পাসের ভাইস প্রিন্সিপাল রুমানা চৌধুরী, একাডেমিক হেড কাজী শাহেদা বেগম, মেজরটিলা ক্যাম্পাসের নাহীদা খাঁন, সংবাদকর্মী আহমদুল হক চৌধুরী বেলাল প্রমুখ।

 

উদ্বোধন শেষে চিত্র প্রদর্শনী ঘুরে ঘুরে দেখেন প্রধান অতিথিসহ অথিতিবৃন্দ। এসময় তারা শিক্ষার্থীদের ভূয়সী প্রশংসা করেন। একজন ছাত্র হাফিজ আহমদ মজুমদার এমপির প্রতিকৃতি তাঁর নিজ হাতে একে উপহার প্রদান করে। শিক্ষার্থীরা অথিতিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়।

 

চিত্র প্রদর্শনীতে বিভিন্ন ক্যাম্পাসে ছাত্র ছাত্রীদের আঁকা চিত্র গ্যালারীতে স্থান পাওয়ার পাশাপাশি এবং পাশাপাশি শিক্ষিকাদেরও আলাদা একটি কর্নার ছিল। চিত্র প্রদর্শনী ছাত্র শিক্ষক অভিভাবক ও অতিথিবৃন্দের একটি মিলন মেলায় পরিণত হয়েছিল।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম