তাহিরপুরে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের বিবদমান বিরোধ নিয়ে বৈঠক, অতঃপর নিষ্পত্তি

প্রকাশিত: ৮:০২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২০

তাহিরপুরে তাবলিগ জামাতের দুই পক্ষের বিবদমান বিরোধ নিয়ে বৈঠক, অতঃপর নিষ্পত্তি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় তাবলিগ জামাত নিয়ে মাওলানা জুবায়ের ও সাদ পন্তিদের মধ্যে বিরোধ ছিল দীর্ঘদিন ধরেই। যার জন্য উত্তেজনা বিরাজ করতে থাকে গোটা উপজেলা জুড়ে। এমনকি উভয় পক্ষের মধ্যে যেকোন সময় সংঘর্ষের আশঙ্কাও ছিল জনমনে। এমন পরিস্থিতি মোকাবেলায় থানা পুলিশ সব সময়ই ছিল তৎপর।

 

তাবলিগ জামাতের এমন বিরোধ নিরসন ও আইনশৃংখলা রক্ষার লক্ষ্যে মাওলানা জুবায়ের ও সাদ পন্তিদের নিয়ে রবিবার রাতে বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়িতে এক বৈঠকে বসেন তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আতিকুর রহমান।

 

বৈঠকে এলাকার নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গও অংশ নেন। সকলের উপস্থিতিতে দীর্ঘ আলোচনা ও মতামতের ভিত্তিতে বিষয়টি সুরাহা করা হয়।

 

এসময় সর্বসম্মতিতে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় যে, তাহিরপুরে থানার একক মার্কাজ বাদাঘাট জামে মসজিদ হবে এবং এর প্রধান জিম্মাদার হিসেবে থাকবেন মাওলানা মাঈনুদ্দীন। মার্কাজে যেকোন জামাত আসতে চাইলে জিম্মাদারের অনুমতি সাপেক্ষে আসতে পারবেন। তবে, জিম্মাদারের অনুমতি উপেক্ষা করে জোরপুর্বক কোন মসজিদে জামাত প্রবেশ করতে পারবে না।

 

তাবলিগ জামাতের উভয় পক্ষ এই সিদ্ধান্ত মেনে নেওয়ায় চলমান বিরোধ ও উত্তেজনার সমাধান হয়। উপস্থিত সবাইকে গৃহীত সিদ্ধান্ত মতে চলার ও আইনশৃংখলা রক্ষা করে এলাকায় শান্তি প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান।

 

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান এই ঘটনায় সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আইনশৃংখলা রক্ষায় পুলিশ বাহিনী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রামের খবর রাখছে। এরই ধারাবাহিকতায় তাবলিগ জামাতের চলমান বিরোধ নিরসনে আলোচনার প্রস্তাব দেওয়া হয়। উভয় পক্ষের প্রতিনিধিগণসহ স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতে কয়েকটি সিদ্ধান্তের মাধ্যমে তা সুরাহা করা হয়।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম