কানাইঘাটে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন! আটক ৩

প্রকাশিত: ৭:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৯

কানাইঘাটে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন! আটক ৩

কানাইঘাট সংবাদদাতা
সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে আপন ভাই-ভাতিজার হাতে খুন হয়েছেন ওলিউর রহমান(৬৫)। মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় অলির উপর হামলে পড়ে খলিলুর রহমান(৬০) গং। নিজ ঘরেই তার মৃত্যু নিশ্চিত করে বাহিরে দরজায় তালা দিয়ে রাখে। স্থানীয়রা দরজা খোলে ওলির মৃতদেহ দেখে পুলিশে খবর দেন।

নিহত ওলি উপজেলার সদর ইউনিয়নের উমাগড় গ্রামে মৃত তোতা মিয়ার পুত্র।

হত্যাকান্ডের পর কানাইঘাট থানা পুলিশ এলাকায় সাঁড়াশী অভিযান চালিয়ে নিহতের ছোটভাই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত খলিলুর রহমান (৬০), তার স্ত্রী রহিমা বেগম (৫০) ও ছেলে মামুন আহমদ (২৭) কে আটক করেছে। এবং নিহতের লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কানাইঘাট সার্কেলের এএসপি আব্দুল করিম, শিক্ষানবিশ এএসপি ওয়ালিউল ইসলাম রাজীব, থানার ওসি (তদন্ত) আনোয়ার জাহিদ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওলিউর রহমানের কোন ছেলে সন্তান নেই। তিন মেয়ের মধ্যে দুই মেয়ে বিবাহিত ও মাসুদা নামের এক মেয়ে তালাকপ্রাপ্ত হিসেবে পিত্রালয়ে রয়েছে। দরিদ্র অলিউর রহমান কলা বিক্রি করে সংসার চালাতেন। সম্পত্তি বলতে বাড়িতে ছয় শতক জমি রয়েছে। জমিটুকু জোর পূর্বক আত্মসাৎ করার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে তাঁর আপন ছোটভাই খলিলুর রহমান চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন। ওলিউর রহমানের ছেলে সন্তান না থাকায় তাঁর ছয় শতক জমি খলিলুর রহমান তাঁর নামে রেজিস্ট্রারী করার জন্য মঙ্গলবার সকাল থেকে তাকে রেজিস্ট্রি অফিসে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এতে ওলিউর রাজি না হওয়ায় সকাল ১০টার দিকে খলিলুর রহমান, তাঁর পুত্র মামুন ও মারুফ মিলে ওলিকে মারপিট করে গুরুতর আহত অবস্থায় ঘরে তালা দিয়ে রাখেন। এসময় ওলির মেয়ে মাসুদাকে নানা হুমকিও প্রদান করা হয়।

পিতার কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে শোর চিৎকার করে আশপাশের লোকদের জড়ো করেন মাসুদা। তার বাবাকে আহত অবস্থায় ঘরে তালা দিয়ে রাখা হয়েছে মর্মে স্থানীয়দের অবগত করলে তারা তালা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করেন। ততক্ষণে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন ওলি। বিষয়টি কানাইঘাট থানা পুলিশকে অবহিত করলে পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করে।

এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে মাসুদা বেগম বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

কানাইঘাট সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল করিম বলেন, জমি সংক্রান্ত ঘটনায় আপন ভাই ও ভাতিজাদের মারধরে ওলিউর রহমান মারা গেছেন বলে আমরা ধারণা করছি। কারণ তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে এবং নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম