এবার সৌদি থেকে একসাথে ভিডিও বার্তা পাঠালেন ৩৫ নারী

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৭, ২০১৯

এবার সৌদি থেকে একসাথে ভিডিও বার্তা পাঠালেন ৩৫ নারী

সোনালী সিলেট ডেস্ক
সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়ে ভিডিও প্রকাশ করেছেন আরও ৩৫ নারী। বুধবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পায়। ভিডিও বার্তায় ৩৫ নারীকে কেঁদে বিলাপ করতে দেখা যায়। তারা সবাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন।

৪৫ সেকেন্ডের ভিডিও বার্তায় নারী বলেন, ‘আসসালামুয়ালাইকুম দেশ ও প্রবাসী এবং প্রধানমন্ত্রীর কাছে। আমার ৩৫ জন নারী সৌদি আরবে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে সৌদি পুলিশের কাছে ধরা দিয়েছি। কয়েক মাস যাবত আমরা এখানে কষ্টে আছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন আমাদের জীবন ভিক্ষা চাই। আমরা মা, বোনেরা ছোট ছোট সন্তান রেখে এখানে এসেছি। তাদেরকে দেখার মত কেউ নেই। এমনি মা নেই, বাবা নেই। কে দেখবে? এখানে আসার পর অনেকেই মা হারাইছে, সন্তান হারাইছে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটাই আবেদন হাত জোর কইরা বলছি, আমাদেরকে একটু ভিক্ষা দেন। এখান থেকে উদ্ধার করেন। আমরা আপনার পায়ে পরি প্রধানমন্ত্রী। মা ভিক্ষা দেন আমাদেরকে ভিক্ষা দেন।’

৩৫ জনের মধ্যে ১৫ নারীর নাম ও পাসপোর্ট নাম্বার সনাক্ত করা হয়েছে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের পক্ষ থেকে। শাজেদা বেগম (Bk 0931799), খাদিজা বেগম (EA 0887781, দিলারা বেগম (EB 0433637), মোসা. মিটু (BH 0506372), হাজরা খাতুন (BN 0963692), শান্তি আক্তার (BW 0991618), জান্নাতি ফেরদৌসি (BT 0676584), আলো আক্তার (BE 0771677), শিরিনা আক্তার (BN 0910745), মনোয়ারা বেগম (AF 2652620), জুমুর বেগম (BM 0101573), শকিনা বেগম (BA 0093278), রুমা বেগম (BM 0202071)

এর আগে ভিডিও প্রকাশ করে আকুতি জানিয়ে দেশে ফিরেছেন সুমী। একইভাবে ভিডিও প্রকাশ করে আকুতি জানানো আরেক নারী হুসনা আক্তার আজ রাতে দেশে ফিরছেন। পরপর দুজনের উদ্ধারের ঘটনা দেখে ভিডিও প্রকাশ করেছেন আরও ৩৫ জন নারী।

এ ব্যাপারে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রধান শরিফুল হাসান বলেন, নির্যাতনের শিকার আরও ৩৫ নারী ভিডিও বার্তার মাধ্যমে দেশে ফেরার আকুতি জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে। হুসনা এবং সুমিকে উদ্ধারের ঘটনা দেখে তারা ভিডিও প্রকাশ করেছেন। এই নারীদের আমার স্যালুট। রাষ্ট্র বা নিয়োগকর্তা কেউ তাদের শেখাননি বিপদে পরলে কি করতে হবে। তারা নিজেরাই এই কৌশল উদ্ধার করেছে। আমি গত দশ বছর ধরে বলছি আমাদের মেয়েদের শুধু একটা মোবাইল ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হোক তারা যাতে বিপদে পড়লে জানাতে পারে। তখন সব সত্য বেরিয়ে আসবে। কিন্তু আফসোস সৌদিরা আমাদের মেয়েদের মোবাইল ব্যবহার করতে দেয় না। সুমি, হুসনারা বহু কষ্ট করে লুকিয়ে যোগাযোগ করে। আমার ভয় হচ্ছে এতোগুলো ভিডিও প্রকাশ করার পর সৌদিরা হয়তো আরও কঠোর হবে। আমি বলবো আমাদের এখন রাষ্ট্রীয়ভাবে দাবি তোলা উচিত যাতে আমাদের মেয়েরা মোবাইল ব্যবহার করতে পারে।

  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম