অভিজাত রেস্টুরেন্টে গিয়ে এসব কি খাচ্ছি আমরা?

প্রকাশিত: ৯:৪৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৫, ২০১৯

অভিজাত রেস্টুরেন্টে গিয়ে এসব কি খাচ্ছি আমরা?

সোনালী সিলেট ডেস্ক
রাজধানীর ধানমন্ডির অভিজাত রেস্টুরেন্ট ‘চিলেকোঠা’। প্রতিষ্ঠানটির রান্নাঘর নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। আটা ও মসলায় অসংখ্য পোকা। বিভিন্ন খাবারের ওপর ইঁদুরের বিষ্ঠা। এছাড়া পোড়া তেল, মেয়াদোত্তীর্ণ ভেজাল পণ্য দিয়ে খাবার তৈরি করতে দেখা যায়।

সোমবার ধানমন্ডির ৮ নম্বর রোডে চিলেকোঠায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়।

এ সময় রেস্টুরেন্টটিতে এমন দৃশ্য দেখেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের (বিএফএসএ) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এস এম শান্তুনু চৌধুরী। এ অপরাধে রেস্টুরেন্টকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

শান্তুনু চৌধুরী জানান, চিলেকোঠা রেস্টুরেন্টের রান্নাঘরের পরিবেশ অত্যন্ত নোংরা। ঢুকতেই চোখে পড়ে ময়লা-আবর্জনা খাদ্যপণ্যের সঙ্গে রাখা। মসলা ও আটার মধ্যে অসংখ্য পোকা দেখা যায়। বিভিন্ন খাবার তৈরির পণ্যের ওপর ইঁদুরের বিষ্ঠা দেখা যায়। রান্নায় ব্যবহার করা লেবেলবিহীন এমন বেশকিছু পণ্য পাওয়া যায়। একই রেফ্রিজারেটরে কাঁচা মাংস, মেরিনেটেড মাংস ও পালংশাক ব্লান্ড করা অবস্থায় খোলা রেখেছে। এসব অপরাধে চিলেকোঠাকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এদিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পংকজ চন্দ্র দেবনাথ কে বি স্কয়ারে অবস্থিত ম্যাডসেফ রেস্টুরেন্টে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। এ সময় রান্নাঘরে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য প্রস্তুত, যথাযথ লেবেলবিহীন খাদ্যসামগ্রী ব্যবহার ও মজুত পণ্যের ক্রয়ের রশিদ দেখাতে ব্যর্থ হওয়ার অপরাধে রেস্টুরেন্টটিকে নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩ অনুযায়ী এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

এর আগে একই এলাকায় অবস্থিত ‘ক্যাফে দরবার’ রেস্তোঁরায় অভিযান পরিচালনা করা হয় এবং উক্ত রেস্তোঁরার পরিবেশ তুলনামূলক সন্তোষজনক হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটিকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম