পর্দা উঠলো আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০ এর

প্রকাশিত: ৮:৪৬ পূর্বাহ্ণ, মে ৩০, ২০১৯

পর্দা উঠলো আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০ এর

সোনালী সিলেট ডেস্ক ::: আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯ কে স্বাগত জানাল সারা বিশ্ব। বাকিংহাম প্যালেসের সামনে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় লন্ডন দ্য মলে শুরু হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে পর্দা উঠল ক্রিকেট বিশ্বকাপের ১২তম আসরের। বুধবার বাকিংহাম প্যালেসের সামনে লন্ডন মলে আয়োজিত হয় বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এক ঘণ্টাব্যাপী ব্যতিক্রমী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ঘণ্টা বাজল বিশ্বকাপ ক্রিকেটের মহাযজ্ঞের।

তবে মাঠের লড়াই শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার থেকে। ওভালে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার লড়াই দিয়ে শুরু হবে ময়দানের লড়াই। ১০ দলের আসর চলবে ১৪ জুলাই পর্যন্ত।

সচরাচর বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়ে থাকে স্টেডিয়ামে। তবে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস বিশ্বকাপ দেখল ব্যতিক্রম দৃশ্য। রাজপ্রাসাদ প্রাঙ্গণে হলো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

ছড়িয়ে ছিটিয়ে চল্লিশ হাজার দর্শক উপস্থিত ছিলেন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে। সংগীত আয়োজন সঙ্গে ক্রিকেট। এই ছিল উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে। যাতেই বর্ণিল হয়ে উঠল উৎসব। উপস্থাপনায় ছিলেন সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফ, শিবানী দান্ডেকার ও প্যাডি ম্যাকগিউনেস।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই মঞ্চে আসেন বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া দশ দশের অধিনায়কেরা। এরপরই সুরের মূর্ছনা। পারফর্ম করেছেন রুডিমেন্টাল সহ নামি দামি মতো তারকা।

এরপর দশ দেশের সাবেক ক্রিকেটার ও একজন করে অন্য জগতের তারকা নিয়ে হয় ‘৬০ সেকেন্ড চ্যালেঞ্জ’ নামের ভিন্ন ধর্মী এক ক্রিকেট ম্যাচ। বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন সাবেক ক্রিকেটার আবদুর রাজ্জাক ও অভিনেত্রী জয়া আহসান।

পাকিস্তানের পক্ষে ছিলেন ক্রিকেটার আজহার আলী ও মালালা ইউসুফজাই। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে প্রতিনিধিত্ব করেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার ভিভ রিচার্ডসন ও অ্যাথলেট ইয়োহান ব্লাক। অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্রেট লির সঙ্গে ছিলেন টেনিস তারকা প্যাট ক্যাশ।

এক মিনিটের এই ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় সর্বোচ্চ ৭৪ রান করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। আসরে ফেভারিটের দাবিটাও যেন আরেকবার এই আয়োজনে জানিয়ে দিল তারা।

বাংলাদেশের পক্ষে রাজ্জাক ও জয়া আহসান মিলে করেন ২২ রান। পুরো রানই করেন রাজ্জাক। জয়া এক বলের বেশি ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। শূন্য রানে অপরাজিত ছিলেন।

দারুণ এই ক্রিকেট আয়োজনের পর মঞ্চে ট্রফি নিয়ে আসেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক ও ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার গ্রায়েম সোয়ান। মঞ্চে ক্লার্ক জানান, বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডই ফেভারিট। আর ২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে শিরোপা ধরে রাখতে হলে গেল কিছুদিনের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার পরামর্শ দেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান।

অনুষ্ঠান পর্ব যখন চলাকালেই দশ দেশের অধিনায়ক দেখা করেন ব্রিটিশ রাজ পরিবারের সঙ্গে। ব্রিটেনের রানী আলেকজান্দ্রা মেরি বা দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন অধিনায়কেরা।

সব অপেক্ষা শেষে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্যমে শুরু হয়ে গেল বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা। দেড় মাস জুড়ে এবার মাঠের লড়াইয়ে চ্যাম্পিয়নকে খুঁজে নেওয়ার পালা।

আগামী সাত সপ্তাহে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসজুড়ে এই টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •