ময়মনসিংহে এখন ফণী

প্রকাশিত: ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ, মে ৪, ২০১৯

ময়মনসিংহে এখন ফণী

সোনালী সিলেট ডেস্ক ::: দুর্বল হয়ে যাওয়া ঘূর্ণিঝড় ফণী শনিবার দুপুরের দিকে টাঙ্গাইল, পাবনা ও ময়মনসিংহে অবস্থান করছিল। এর আগে সকাল নয়টার দিকে ঘূর্ণিঝড়টি ফরিদপুর-ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে ছিল।

বেলা দেড়টার দিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র এ কথা জানায়। ঘূর্ণিঝড়টি এখন নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে।

ফণী দুর্বল হয়ে যাওয়ার পরও এখন পর্যন্ত মোংলা ও পায়রা বন্দরে আগে থেকে দেখানো সাত নম্বর বিপদ সংকেত রাখতে বলা হয়েছে। আর কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে চার নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে হয়েছে।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় ফণীর ফলে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি হবে বলে জানানো হয়েছে।

ভারতের ওডিশায় আঘাত হানার ২১ ঘণ্টা পর শনিবার সকাল ছয়টার দিকে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল অতিক্রম করে প্রবল ঘূর্ণিঝড় ফণী। আরও উত্তর দিকে চলে গিয়ে সকাল নয়টার দিকে ফরিদপুর ও আশপাশের অঞ্চলে অবস্থান করছিল। এটি পরে আরও উত্তর-পূর্ব দিকে এগিয়ে গেছে। ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাবে দেশের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন আছে। দমকা ও ঝোড়ো হাওয়াসহ সারা দেশে চলছে বৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টি।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন জানান, সমতলে আসার পর ফণী উত্তরাঞ্চলে ভারতের আসাম ও মেঘালয়ের দিকে চলে যাবে। পরিণত হবে গভীর নিম্নচাপে। এরপর আরও দুর্বল হয়ে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ঘূর্ণিঝড় ও অমাবস্যার প্রভাবে উপকূলীয় জেলা চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, বরগুনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা এবং এসব এলাকার অদূরবর্তী দ্বীপ ও চর স্বাভাবিকের চেয়ে দুই থেকে চার ফুট উচ্চতায় জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে থাকা সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম