সুগন্ধির দোকান থেকে গুলশানে আগুন!

প্রকাশিত: ৮:৪৪ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৩০, ২০১৯

সুগন্ধির দোকান থেকে গুলশানে আগুন!

সোনালী সিলেট ডেস্ক ::: রাজধানীর গুলশানের ডিএনসিসি মার্কেটে কাঁচাবাজারে সুগন্ধি (পারফিউম) বিক্রির দোকান থেকে আগুন লাগে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিস, স্থানীয় দোকান মালিক ও কর্মচারীরা এ কথা বলেছেন। এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শনিবার (৩০ মার্চ) ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে আগুন লাগে বলে প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান।

এখন পর্যন্ত হতাহত হওয়ার বিষয়ে কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

ডিএনসিসি মার্কেটের একটি দোকানের মালিক শাহদাত হোসেন জানান, আগুন লাগার ঘটনাটি ভোরে ঘটেছিল বলে এখানে তেমন কেউ ছিল না। মার্কেটের পূর্ব পাশে হঠাৎ করে বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। সেখানে সুগন্ধির দোকান রয়েছে। সেখান থেকে আগুন লাগে বলে তারা শুনেছেন।

সকালে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, সুগন্ধির দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, কোত্থেকে আগুন লেগেছে, এখনই তা বলার সময় হয়নি। এটা তদন্তসাপেক্ষ ব্যাপার। তবে যে জায়গার কথা বলা হচ্ছে, সেটি মারাত্মকভাবে পুড়েছে। সেখানকার টিনগুলোও দুমড়েমুচড়ে গেছে।

ডিএনসিসির ওই মার্কেটে ১৫০টির বেশি দোকান রয়েছে। এর মধ্যে পুরো কাঁচাবাজার এলাকার সব দোকান মারাত্মকভাবে পুড়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতিটি দোকানের ফ্রিজগুলো মারাত্মকভাবে পুড়েছে। সেখানে দোকানিরা তাদের শেষ সম্বলটুকু খুঁজছেন।

ঘটনার তদন্তে ফায়ার সার্ভিস পাঁচ সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল নেওয়াজ সাংবাদিকদের জানান, কাঁচাবাজারের আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এখানে আগুন নেভানোর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই। আগের ঘটনার পর এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে তিন থেকে চারবার মার্কেট কর্তৃপক্ষকে নোটিশ দেওয়া হয়। কিন্তু ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৭ সালের ৩ জানুয়ারি ভোরবেলা একই মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল। সেবার মার্কেটটির বহু দোকান পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এরপর অস্থায়ীভাবে দোকান তৈরি করে মার্কেটটি চালু করা হয়। ২০১৭ সালে আগুনের ঘটনার পর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়নি মার্কেট কর্তৃপক্ষ—এমন অভিযোগ করেন আশপাশের লোকজন। শনিবার ভোরে আগুন লাগার খবর পেয়ে দুই মিনিটের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট চলে আসে।

শনিবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় রাস্তা ফাঁকা ছিল। তাই দ্রুত আগুন নেভানোর কাজ শুরু করা গেছে। এ জন্য ডিএনসিসির সুপার মার্কেট অংশে আগুন ছড়ায়নি। তা না হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারত বলে স্থানীয় লোকজন জানান।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম