ফয়সল চৌধুরীর ১৯ দফা ইশতেহার 

প্রকাশিত: ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৫, ২০১৮

ফয়সল চৌধুরীর ১৯ দফা ইশতেহার 

সোনালী সিলেট ডেস্ক :::আসন্ন সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ফয়সল আহমদ চৌধুরী তাঁর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। মঙ্গলবার (২৫ ডিসেম্বর) সকাল ১০ টায় নগরীর জিন্দাবাজারে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের কনফারেন্সরুমে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে ফয়সল চৌধুরী তাঁর ১৯ দফার ইশতেহারটি তুলে ধরেন।

ইশতেহারের ১৯টি দফার মধ্যে রয়েছে রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন সাধনের মাধ্যমে সিলেট গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার সড়ককে চারলেনে উন্নীতকরণ। দুই উপজেলার আভ্যন্তরীণ অন্যান্য রাস্তা-ঘাটের উন্নয়ন। দুই উপজেলার প্রতিটি ঘরে গ্যাস ও বিদ্যুৎ পৌঁছানোর ব্যবস্থাগ্রহণ। নদী ভাঙন রোধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া, ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারগুলোর জন্য বিকল্প আবাসনের ব্যবস্থা করার পাশাপাশি কৃষির সম্প্রসারণ করা।

এছাড়াও দুই উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর উন্নয়ন সাধনের মাধ্যমে সামগ্রিক শিক্ষা কাঠামোগুলো ও শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো। মৎস্যজীবীদের স্বার্থ সংরক্ষণে আন্তরিকতার সাথে কাজ করা। বিপুল সংখ্যক মৎস্যজীবীদের ব্যবসার উন্নয়নে তাদের পছন্দ অনুসারে ব্যবসা স্থান নির্ধারণ করে দেয়া। মৎস শিল্প সম্প্রসারণে উদ্যোক্তাদের ঋণ দেয়ার ব্যবস্থা করে দেয়া। মা ও শিশুদের কল্যাণে আধুনিক মানের হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা। ইউনিয়ন ভিত্তিক অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে দেয়া। দরিদ্র ও মধ্যবিত্তদের জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেয়া।

প্রবাসী অধ্যুষিত দুই উপজেলার প্রবাসীদের কল্যাণে ইশতেহারে ফয়সল আহমদ চৌধুরী বলেন, প্রবাসীদের বিনিয়োগে উৎসাহদানেরকল্পে বিশেষ সেল গঠন করবেন। বিনিয়োগে আগ্রহী প্রবাসীদের জন্য ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করবেন।

এছাড়াও ইশতেহারে আরোও রয়েছে মাদকের ভয়াল থাবা থেকে যুব সমাজকে রক্ষার লক্ষ্যে বাস্তবসম্মত ব্যবস্থা নেয়া। তরুণ-তরুণীদের জন্য কর্মসংস্থানে ব্যবস্থা করা। সেলাই প্রশিক্ষণ, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, ইংরেজি ভাষা শিক্ষা ও কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে পদক্ষেপ নেয়া। পাশাপাশি বয়স্ক শিক্ষাকেন্দ্র চালু ও যুব সমাজকে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেয়া। প্রয়োজনীয় সংখ্যক স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা। নারী নির্যাতন এবং ইভটিজিং রোধে কার্যকর মনিটরিং সেল গঠন ও বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ।

পাশাপাশি গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারের নিজস্ব ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা ও কৃষ্টি ও সংস্কৃতি সংরক্ষণ এবং উৎকর্ষ সাধনে উপজেলা জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করা হবে। মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণ ও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি সংরক্ষণে কাজ করা হবে।

অন্যান্য দফাগুলোর মধ্যে রয়েছে বয়স্ক লোকদের বার্ধক্যকালীন সেবা নিশ্চিত করা, আবাসন সমস্যা দূরীকরণ, বিয়ানীবাজার ও গোলাপগঞ্জ এলাকাকে মডেল এলাকায় রূপান্তর, সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা করা, বর্জ্যমুক্ত ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন এলাকা গড়ে তুলা, মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।

ইশতেহার ঘোষণাকালে উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জিয়াউল বারী চৌধুরী, সহ- স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক সরোয়ার হোসেন গোলাপগঞ্জ উপজেলার যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আমিন উদ্দিন আহমদসহ তাঁর সমর্থকবৃন্দ।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম