যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকাজ চলমান রাখার প্রতিশ্রুতি ঐক্যফ্রন্টের

প্রকাশিত: ৮:১৯ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮

যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকাজ চলমান রাখার প্রতিশ্রুতি ঐক্যফ্রন্টের

সোনালী সিলেট ডেস্ক ::: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করতে পারলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকার্য চলমান রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

আসন্ন নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে এ প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলের হোটেল পূর্বাণী ইন্টারন্যাশনালে সংবাদ সম্মেলন করে এ প্রতিশ্রুতিসহ ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার ঘোষণা করা হয়।

এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির ক্ষমতার ভারসাম্য আনা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও নাগরিকদের নিরাপত্তাসহ আরও ১৪ প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী ইশতেহারে।

ইশতেহার ঘোষণা করেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু, ড. রেজা কিবরিয়া প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দলটি বিচার কাজ শুরু করে। একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বিচারে জামায়াত ও বিএনপি নেতাদের অনেকেই দণ্ডিত হন। বিএনপি ও জামায়াত প্রথম থেকেই এই বিচারের বিরোধিতা করে আসছে।

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হওয়ার পর বিএনপি এই ফ্রন্টে যোগ দেয়। নির্বাচন কমিশনে জামায়াতে ইসলামির নিবন্ধন না থাকায় দলটিও ঐক্যফ্রন্টের অংশ হিসেবে বিএনপির প্রতীক ধানের শীষে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। এছাড়াও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অংশ হিসেবে যুদ্ধাপরাধী দল জামায়াতসহ যুদ্ধাপরাধী পরিবারের সদস্যরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম