প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমিতির স্মারকলিপি

প্রকাশিত: ১০:৫৯ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ৯, ২০১৮

প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করেছেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী সমিতি সিলেট জেলার নেতৃবৃন্দ।
সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি, সিলেট জেলা কমিটির পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি পেশ করেন। শিক্ষকের বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোট কর্তৃক কেন্দ্রিয় ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই স্মারকলিপি পেশ করেন তারা।
জেলা প্রশাসকের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও আইসিটি) আবু সাফায়াৎ মুহম্মদ শাহে দুল ইসলাম।
এসময়ে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সিলেট জেলা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি নিকেতন দাস, সহ-সভাপতি আব্দুল আহাদ, মো: রফিক আহমদ, জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রমথেশ দত্ত, কেন্দ্রীয় সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক মো: নুরুল আমীন, মহানগর কমিটির সিনি: সহ-সভাপতি কল্যাণব্রত বিশ্বাস, জেলা যুগ্ম-সম্পাদক বুরহান উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো: সিরাজ উদ্দিন, ফেঞ্চ্গুঞ্জ উপজেলা সভাপতি সাইফুল আলম রাজ্জাক, ওসমানীনগর উপজেলা সভাপতি মো: ফুল মিয়া, যুগ্ম-সম্পাদক জিয়াউর রহমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বিমল দাস, জেলা প্রচার সম্পাদক মালেক আহমদ, জৈন্তাপুর উপজেলা সিনি: সহ-সভাপতি বিজেন চন্দ্র দেব, জেলা দপ্তর সম্পাদক আব্দুল মজিদ, জেলা সদস্য রঞ্জিত মোহন দাস, মো: জাকারিয়া, ফখরুল ইসলাম, সুমন চন্দ্র দেব, জামাল আহমদ প্রমূখ।
সহকারী শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রমথেশ দত্ত বলেন, ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে সহকারী শিক্ষকের বেতনস্কেলের ধাপের কোন ব্যবধান রাখেন নাই। কিন্তু বর্তমানে তিন গেডের ব্যবধান সৃষ্টি হয়েছে। ২০১৪সালের প্রথম দিক থেকে বিভিন্নভাবে আমরা বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবী জানিয়ে আসছি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়ে আসছি। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে মতবিনিময়ও করে আসছি। ২০১৫সালের ১লা নভেম্বর বেতন বৈষম্য নিরসন কমিটির চেয়ারম্যান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত মহোদয়ের সাথে আনুষ্ঠানিক বৈঠক করি। ২০১৭সালের ২৩-২৫ডিসেম্বর ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আমরণ অনশন কর্মসূচী পালন করি। ২৫ডিসেম্বর বিকেলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়, সচিব মহোদয় ও ডিজি মহোদয় আমাদেরকে নিরসনের আশ্বাস দিয়ে অনশন ভাঙান। কিন্তু আজ পর্যন্ত আমাদের দাবী যৌক্তিক থাকা সত্তেও তা মেনে নেওয়া হচ্ছে না। আমাদের একটাই দাবী প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের পরের ধাপে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকের বেতনস্কেল নির্ধারণ। এই দাবী নিয়ে আজ আমরা শিক্ষাবান্ধব সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বরণাপন্ন হচ্ছি। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম