মাধবপুরে প্রেম করে বিয়ে, অতঃপর আত্মহত্যা!

প্রকাশিত: ৯:৪৮ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০২০

মাধবপুরে প্রেম করে বিয়ে, অতঃপর আত্মহত্যা!

প্রতীকী ছবি


মাধবপুর সংবাদদাতা
হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় প্রেম করে বিয়ের মাত্র ৬ দিনের মাথায় আত্মহত্যা করেছেন স্ত্রী কুলসুম আক্তার (১৭)। এর আগের দিন আত্মহত্যার জন্য বিষ পান করেন কুলসুমের স্বামী হৃদয়। স্থানীয়রা তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বেঁচে যান হৃদয়। কিন্তু অসহ্য যন্ত্রণা বুকে নিয়ে চিরতরে পৃথীবি থেকে বিদায় নেন সদ্যবিবাহিত কিশোরী কুলসুমা।

রবিবার (১৪ জুন) বেলা ২টার দিকে মাধবপুর থানা পুলিশ কুলসুমের লাশ উদ্ধার করে।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাধবপুর উপজেলার নারাইনপুর গ্রামের আনছুর আলীর মেয়ে কুলসুমা আক্তার একই উপজেলার নোয়াপাড়া সায়হাম স্পিনিং মিলস লিমিটেড এ কাজ করতেন। মাধবপুর উপজেলার ছাতিয়াইন ইউপির পিয়াইম গ্রামের হৃদয় নামে এক সহকর্মীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্ককে স্থায়ীভাবে রূপ দিতে গিয়ে পরিবারকে না জানিয়ে গত ৮ জুন তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের পর মেয়ে তার বাবাকে ফোন করে বিয়ের কথা জানায়। কিন্তু পরক্ষণেই কুলসুমা বুঝতে পারেন যে, তিনি প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তার আগেও হৃদয়ের স্ত্রী-সন্তান রয়েছে। এমন খবর জানার পর রাগে ক্ষোভে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেন কুলসুমা।

 

অপরদিকে, কুলসুমার আত্মহত্যার আগেরদিন তার স্বামী হৃদয়ও আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলে জানা গেছে। উপজেলার ছাতিয়াইন ইউপির পিয়াইম গ্রামের হৃদয় পরিবারসহ নোয়াপাড়া ভাড়া বাসায় থেকে সায়হাম স্পিনিং মিলস লিমিটেডে কাজ করতেন। গতকাল হৃদয়ও বিষপান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তাকে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

 

মাধবপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম