‘চিকিৎসা না দিলে প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিকের বিরুদ্ধে কঠোর কর্মসূচি’

প্রকাশিত: ৮:০১ অপরাহ্ণ, জুন ৭, ২০২০

‘চিকিৎসা না দিলে প্রাইভেট হাসপাতাল ও ক্লিনিকের বিরুদ্ধে কঠোর কর্মসূচি’

জেলা ও মহানগর ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের প্রতিবাদ সভা


প্রাইভেট হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা অবহেলায় সিলেট বিভাগ ইলেকট্রনিক্স টেকনিশিয়ান কল্যাণ সমিতির যুগ্ম আহবায়ক ও আর.এল ইলেকট্রিকের সত্ত¡াধিকারী ইকবাল হোসেন খোকাসহ আরো সাধারণ রোগীর মৃত্যুতে সিলেট জেলা ও মহানগর ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

রবিবার (০৭ জুন) দুপুরে নগরের একটি হোটেলে এ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সভার প্রথমে মরহুম ইকবাল হোসেন খোকা, ব্যবসায়ী কামাল অ্যান্ড কোম্পানীর সত্ত্বাধিকারী আব্দুস সামাজ কামাল ও সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা জাহির মিয়া জন্য দোয়া ও রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়।

 

সিলেট মহানগর ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আব্দুর রহমান রিপনের সভাপতিত্বে ও জেলা শাখার অর্থ সম্পাদক কওছর আলীর পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ মো. মকন মিয়া চেয়ারম্যান।

 

প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শেখ মো. মকন মিয়া চেয়ারম্যান বলেন, চিকিৎসা সকল জনগণের মৌলিক অধিকার। বর্তমান এই করোনা মহামারিতে কিছুসংখ্যাক অমানবিক চিকিৎসক সাধারণ মানুষকে চিকিৎসা না দিয়ে হয়রানী করে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এরা চিকিৎসকদের মহান পেশাকে কুলষিত করছে।

 

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল ক্লিনিক-হাসপাতালে করোনা এবং সাধারণ রোগীর চিকিৎসা সেবা দেয়ার সরকারী নির্দেশনা দিয়েছেন। কিন্তু এই নির্দেশনা কেউ মানছে না। এতে বড় ধরনের বিড়ম্বনায় পড়েছেন সাধারণ রোগীরা। এমনকি প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকে। গত শুক্রবার চিকিৎসাসেবা না পেয়ে আমাদের সহকর্মি খোকার মৃত্যু আমারা মেনে নিতে পারছি না।

 

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তরা বলেন, ‘চিকিৎসার অভাবে মানুষের মৃত্যু সিলেটবাসী আর বরদাশত করবে না। আগামী ৭ দিনের মধ্যে সিলেটের সকল হাসপাতালে করোনা রোগীসহ সব ধরণের রোগীর চিকিৎসা দিতে হবে। অন্যথায় সিলেটের ব্যবসায়ী সমাজ সিলেটবাসীকে সঙ্গে নিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে। সিলেটবাসী কোনো হাসপাতাল মালিকদের ছাড় দিবে না।

 

সভায় করোনা আক্রান্ত সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও তার স্ত্রী আছমা কামরান এবং বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর স্ত্রী শ্যামা হকের রোগমুক্তির জন্য দোয়া করা হয়।

 

সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সিলেট ১ আসনের এমপি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেনকে ধন্যবাদ জানানো হয় তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।

 

বক্তারা চিকিৎসার অভাবে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের হত্যা করা হয়েছে উল্লেখ করে দায়ী ক্লিনিক-হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

 

সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি আতিকুর রহমান আতিক, সিলেট মহানগর গণদাবী পরিষদের সভাপতি এমএ হান্নান, সিলেট বিভাগ ইলেকট্রনিক্স টেকনিশিয়ান কল্যাণ সমিতির যুগ্ম আহবায়ক কামরুল ইসলাম কামরুল, জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য ক্যল্যাণ পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদক মো. আলেক মিয়া, ট্রেড সেন্টার ব্যবসায়ী সমিতির নেতা মো. খছরু মিয়া, ব্যবসায়ী নেতা বখতিয়ার আহমদ ইমরান, মো. নিজাম উদ্দিন প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম