চিকিৎসকদের উন্নত হোটেলে রাখার দাবি ব্যারিস্টার সুমনের

প্রকাশিত: ৯:০৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২০

চিকিৎসকদের উন্নত হোটেলে রাখার দাবি ব্যারিস্টার সুমনের

সোনালী সিলেট ডেস্ক
করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে চিকিৎসকদের জন্য রাজধানীর ফাইভ এবং থ্রি-স্টার হোটেল বরাদ্দে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

 

সোমবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে ফেসবুকে তার ভেরিফাইড পেজে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ দাবি জানান। এ সময় ডাক্তার, নার্স, সাংবাদিক, পুলিশ এবং সশস্ত্র বাহিনীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করেন সুমন।

 

ব্যরিস্টার সুমন বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ যুদ্ধে যারা সেনাপতি হিসেবে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন, তারা হচ্ছেন আমাদের চিকিৎসক। তাদের ব্যাপারে অনেক কথা থাকতে পারে। তারা যাই করুক না কেন, এখন পর্যন্ত তো সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া সেবা দিয়ে যাচ্ছেন সাংবাদিক, পুলিশ ও সশস্ত্র বাহিনী।

 

ভিডিও বার্তায় তিনি আরও বলেন, বর্তমানে রাজধানীর থ্রি স্টার এবং ফাইভ স্টার হোটেলগুলোতে কোনো মানুষ নেই। তাই এগুলো ডাক্তার, পুলিশ অথবা নার্সদের জন্য দেওয়া যেতে পারে। প্রয়োজনে সরকারের পক্ষ থেকে হোটেলের মালিকগুলোকে ভাড়া দেওয়া যেতে পারে। আর এটা করলে ডাক্তাররা করোনায় আক্রান্ত হলেও অন্তত তাদের পরিবারটা বেঁচে যাবে। এ সময় তিনি ভারতে ডাক্তারদের জন্য ফাইভ স্টার হোটেল বরাদ্দের কথাও যোগ করেন।

 

সুমন বলেন, দেশে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে। কিন্তু এই সংকটময় সময়ে যারা কাজ করছেন তাদের জন্য ব্যক্তি অধিকার খর্ব করার অনুরোধও জানান তিনি। প্রয়োজনে সিলেটে বিভিন্ন ইংল্যান্ড প্রবাসীদের অব্যহৃত বাড়িগুলোও পুলিশদের জন্য রেস্ট হাউজ হিসেবে ব্যবহারের দাবিও জানান তিনি।

 

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর পরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ প্রসংশনীয় বলে শুরু করা ভিডিও বার্তায় ব্যরিস্টার সুমন বলেন, ডাক্তার, পুলিশ এবং সাংবাদিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। তাহলেই অনেক মানুষকে বাঁচানো যাবে।

 

গত ২৮ মার্চ নিজ চুনারুঘাট থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তারদের জন্য ব্যক্তিগত গাড়িটি দিয়ে ফেসবুক লাইভে আসেন সুমন। এসময় অন্য বিত্তবান ও নেতাদেরও দেশের ক্রান্তিলগ্নে এভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। গাড়িটি দেয়ার সময় সুমন ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রীও (পিপিই) দেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকদের।

 

পরে নিজের এলাকা চুনারুঘাটে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চিকিৎসাসেবা দেয়ার জন্য তিনি পাঁচজন ডাক্তারের সমন্বয়ে একটি মেডিকেল টিমও গঠন করেন। সুমন তার প্রসিকিউটর পদের ৪১ দিনের বেতনের এক লাখ ৩০ হাজার টাকাও দেন অসহায়দের মাঝে।

 

সবশেষ গত ১১ এপ্রিল সুমন জাগো নিউজকে জানান, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার সুবিধার্থে ডাক্তারদের থাকার জন্য নিজের হবিগঞ্জের আলিশান বাড়িটি দিয়ে দিচ্ছেন। হবিগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জনের অনুমতির পর এই বাড়িটি ডাক্তারদের দিয়ে দেয়া হবে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
0Shares
সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম